Articles published in this site are copyright protected.

(আন্ডারলাইন করা ইটালিক : কোন লেখার বা ভিডিও লিংক )

বিডিয়ার হত্যার গোমর ফাস করলেন খালেদা জিয়া ..হাসিনা, মইন সরাসরি জড়িত  বৈধ একটি জাতি কেন অবৈধ একটি সরকারের কবজায়? স্বাধীনচেতা জাতি কেন পরাধীনতার নাগপাশে অবরুদ্ধ হয়ে আছে, কেন ঘুমিয়ে আছে? রক্ত মাংসের মানুষগুলো কেনইবা শুধু শুধু লাশ হচ্ছে? কার স্বার্থে তোমরা বেঁচে আছ দম ছাড়ছো? ফেলানী মরেও তোমাদের সম্বিত ফিরিয়ে দিতে পারে নি, কেন? বিডিআর বিদ্রোহ হয়, তোমাদের স্বজন ভুলুন্ঠিত হয়, লাশগুলো দেখে তোমরা কত চোখের জল ফেলবে? চোখ আজ ধূঁ ধূঁ মরূভ’মি! জাতি আজ অল্প শোকে কাতর অধিক শোকে পাথর! তোমাদের প্রভু কে বিশ^ বিধাতা আল্লাহ, নাকি অবৈধ একটি সরকার? অতি সম্প্রতি যে মক্কা মদিনা রক্ষার ভূমিকায় নামবে বলে বাড়তি নাটক করছে? আল্লাহ যে শহরকে নিরাপদ শহরের কসম খেয়ে সুরা নাজেল করেছে সেখানেও অনিরাপদরা কেনই বা ঐ শহরেরই দায় নিবে। যুগে যুগে নমরুদ ফেরাউনদের অপরাধ ছিল খোদার উপর খোদকারী করার। তারা চাইতো আমি কম কিসে? নিজেকে অসীম ক্ষমতাধর জ্ঞান করাটাই তাদের বড় পাপ ছিল। হামসে বড়া কৌন হায় ছিল তাদের অপরাধ, আমার রাজ্যে সবাই আমার হুকুমের গোলাম। এ অপরাধ থেকে কি বাংলাদেশের বর্তমান সরকার মুক্ত হতে পারবে? বুকে হাত দিয়ে গোটা জাতি নিজেদের বিধ্বস্ত দশার ও সরকারের ভবিষ্যত পরিণতি আঁচ করুন।

১৯৯৬ সাল থেকে বিদেশী প্রজেক্ট নিয়ে দেশ বিধ্বংসী পথে হাটছে এ মহিলা সরকার কাগজে কলমে রাজনীতিতে। ঐ বছরে ১৯৯৬ সালে ক্যু হয় তারই মদদে। ইউটিউবে আমরা দেখি আওয়ামী স্ক্যান্ডালে ওবায়দুল কাদেরের জবানবন্দি। ৮৬এর ইলেকশন ছিল এরশাদের সাথে শেখ হাসিনার পাতানো ইলেকশন। মিলন হত্যা, দিনাজপুরের ইয়াসমিন নাটক দিয়ে খালেদা কবজা করার নাটক, এসব তারই অসংখ্য অপকর্মী দাগ। ২৭/২৮ বছরের বাংলাদেশের রাজনীতির নেপথ্যের কাহিনীর উপরই ভিত্তি করে “আমার ফাঁসি চাই” গ্রন্থটি শেখ হাসিনার প্রাইভেট সেক্রেটারী মতিউর রহমান রেনটুর রচিত। এ কথা নিশ্চিত বলা যায় যে, “আমার ফাঁসি চাই” বইটি পড়লে যে কেউ বিশেষত তরুণ যুবক ছাত্র সম্প্রদায় রাজনৈতিক প্রতারণার হাত থেকে বেঁচে যাবেন (প্রকাশক)।

হাসিনার নির্দেশে স্তানীয় সংসদ সদস্য বিহারীদের উপর হামলা চালিয়েছে

জনগণের ভোট দেয়ার অধিকার, মিছিল করার অধিকার, দল করার অধিকার এবং সংবাদপত্রের স্বাধীনতা হরণসহ সংবিধানের মৌলিক অধিকার হরণ করে জাতির উপর একদলীয় (বাকশাল) শাসন শোষণ চাপিয়ে দেয়ার অপরাধে শেখ মুজিবর রহমানের মরণোত্তর বিচার চাই, শাস্তি চাই। ১৯৭৫ পরবর্তী শেখ হাসিনা দেশে এসে সন্ত্রাসী, চোরাকারবারী, কালোবাজারী, ঘুষখোরদের রাজনীতিতে টেনে এনে কালোটাকাকেই রাজনীতির চালিকা শক্তিতে পরিণত করেছে এবং রাজনীতি থেকে সকল প্রকার নীতি আদর্শ ঝেটিয়ে বিদায় করে প্রতিষ্ঠিত করেছে নীতিহীন এক রাজনীতি, এ অপরাধে শেখ হাসিনার বিচার চাই, শাস্তি চাই। ভারতে বসে স্বাধীনতার ঘোষক মুক্তিযোদ্ধা রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানকে হত্যার ষড়যন্ত্র ও পরিকল্পনা করে এবং ১৯৮১ সালের ৩০শে মে তা বাস্তবায়িত করার অপরাধে শেখ হাসিনার ফাঁসি চাই। ১৯৮২ সালে জনগণ কর্তৃক নির্বাচিত বিএনপি সরকারকে উৎখ্যাত করে সামরিক সরকার প্রতিষ্ঠিত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থাকার অপরাধে শেখ হাসিনার বিচার চাই, শাস্তি চাই। সামরিক স্বৈরাচার জেনারেল এরশাদকে হাতের কুঠোয় রাখার জন্য ষড়যন্ত্র ও পরিকল্পনা করে ছাত্র আন্দোলনের নামে ৮৩র মধ্য ফেব্রুয়ারী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র জাফর ও জয়নাল এবং ৮৪র ফেব্রুয়ারীতে সেলিম ও দেলোয়ার হত্যার অপরাধে শেখ হাসিনার ফাঁসি চাই। ১৯৯২ সাল থেকে ১৯৯৬ সালের মার্চ পর্যন্ত আন্দোলনের ইস্যু তৈরী করার জন্য ঢাকা শহরে ১০৩জন নিরীহ অজ্ঞাতনামা সাধারণ মানুষকে খুন করার অপরাধে শেখ হাসিনার ফাঁসি চাই (২৬৮ পৃঃ)। শুধু শিরোনাম টাচ করছি।

1

 “আমার ফাঁসি চাই”: সূচীপত্র    ৬৯এর গণ আন্দোলন/ ৭০ এর নির্বাচন/ স্বাধীনতা ঘোষনা/ মুক্তিযুদ্ধ/ সিরাজ সিকদার হত্যা/ একদলীয় শাসন/ শেখ মুজিব হত্যা/ খন্দকার মোস্তাক রাষ্ট্রপতি/ জেল হত্যা/ ৩রা নভেম্বর অভ্যুত্থান, ৭ই নবেম্বর সিপাহী বিপ্লব, ৭ মার্চের ভাষন, ভারতে পলায়ন, বাঘা সিদ্দিকীর কাছে যাওয়া / প্রতিবাদ যুদ্ধ/ যুদ্ধে পরাজয়/ হারিয়ে শেখ মুজিবের জনপ্রিয়তা ফিরিয়ে আনা, রাজনীতিতে শেখ হাছিনা, এই জিয়া সেই জিয়া নয়, রাষ্ট্রপতি জিয়া হত্যা, লেবানন ট্রেনিং/ এরশাদকে ক্ষমতা গ্রহণের আমন্ত্রণ/ ৮৩র মধ্য ফেব্রয়ারীতে ছাত্র হত্যা/ সেলিম ও দেলোয়ার হত্যা/ দেশদ্রোহী অসভ্য বাহিনী/ মসজিদ সরিয়ে ফেলুন / ৮৬র নির্বাচন/ এক বড় মাঠ/ আন্দোলন আন্দোলন খেলা/ ছিয়াশির পার্লামেন্ট ভেঙ্গে দেয়া/ এরশাদ পতন ও তত্ত্বাবধায়ক সরকার/ এরশাদ পতনে সেনাবাহিনীর ভূমিকা/ পদত্যাগ নাটক/ টাকার বিনিময়ে রাষ্ট্রপতি প্রার্থী/ জাহানারা ইমাম ও শেখ হাছিনা, গোলাম আযম ও শেখ হাছিনা বৈঠক/ ১৯৯২এর হিন্দু মুসলিম রায়ট/ ফেরী আটকিয়ে ফেলে রাখা, শেখ হাছিনার গোলাম আাযমের ২য় বৈঠক/ নির্বাচন বাতিলের দাবি/ শেখ হাছিনা এবং মেয়র হানিফ, রুমালে গ্লিসারিন, আজ আমি বেশী খাব/ টাকার ভাগ দিতে হবে/ জাহানারা ইমাম মরেছে, আপদ গেছে/ শেখ হাছিনার ট্রেনে গুলি/ পঞ্চাশ হাজার টাকা এডভান্স/ ফুল ছিটানো/ কুকুর পালা/ স্বামী স্ত্রী রাত কাটায় নি/ শেখ হাছিনার দেহে আঘাত/ অদভুত  চরিত্র কর্ম ও ভাগ্য/ রাজাকারের ছেলের সাথে বিয়ে দিব না/ সব যান বের হন/ এক কোটি সাতত্রিশ লক্ষ টাকা/ নেত্রী এখন নামাজ পড়ছেন/ আমার সাথে বেঈমানী করেছে/ আমি খাইছি/ বঙ্গবন্ধুর ৭৬তম জন্মউৎসব/ হ্যাঁ হ্যাঁ ভিডিওটা সুন্দর হতো/ শেখ হাছিনার মিথ্যে বলা/ আওয়ামী লীগের সিদ্ধান্তের গুরুত্ব/ জনতাকে শান্ত থাকার বকতৃতা/ খাতাকলম গোলাবরুদ ও দিগম্বর/ জেনারেল নাসিমকে ক্ষমা দখলের প্রস্তাব/ পুলিশের লাশ চাই/ বেঈমানটা আসছে/ নায়ক মন্ত্রী ও জনতার মঞ্চ/ আজ পিকনিক/ শেখ হাছিনা জেনারেল নাসিমের বৈঠক/ হিন্দুরা নৌকায় ভোট দেয়/ রাজাকারের কাছে আসন বিক্রি/ হিন্দুরাই আমার বল ভরসা/ সৈন্য নামানোর নির্দেশ দিয়ে চম্পট/ আবু হেনার আগমন/ ঐক্যমতের সরকার/ রওশন এরশাদের পা ধরা/ বোরখাওয়ালীদের সিট/ হানিফ এলজি আরডি মন্ত্রী/ সবার মুখ কালো/ আমার সাথে বেঈমানী/ বেসামাল/ দুই বোনের ভাগাভাগি/ শেয়ার বাজার কেলেঙ্কারী/ ওরা ৬ জন মুক্তিযোদ্ধা/ ডক্টরেট ডিগ্রি পাওয়া/ প্রথম আমেরিকা সফর/ যুদ্ধ বিমান ক্রয়/ কাদের সিদ্দীকী বনাম শেখ হাছিনা/ বিচারপতি সাহাবুদ্দিন আহাম্মেদের রাষ্ট্রপতি হওয়া/ বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা/ গঙ্গা ও পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি/ ঘরভাঙ্গা আসছে এবং ডঃ মহিউদ্দিন মন্ত্রী/ অবাঞ্ছিত ঘোষনা/ দশ টাকার নোটে শেখ মুজিবের ছবি/ পুলিশের গুলিতে কেউ মারা যায় নি/  নেতা ও উপদেষ্টাদের সাথে সম্পর্ক/ কুত্তার জাত/ জিল্লুর রহমান সেক্রেটারী / টাকা আর লাশ/ স্বামীর সাথে না থাকা/ হিন্দুরা কেন আওয়ামী লীগ সমর্থন করে/ পাচার/ ভ্যাট প্রত্যাহার / খেলা/ প্রিয় অপ্রিয় পছন্দের অপছন্দের/ প্রথম নির্দেশ/ কোন নেতা ছিল না/ চিন্তা ভাবনা ছাড়াই বলা/ রাজা বাদশা রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রী/  ওয়াসা/ চাচি ভাতিজির কান্ড/ ইয়েস ম্যাডাম কারেক্ট ম্যাডাম/ কাকে প্রথম সৎ হতে হবে/ সুরে সুরে কথা বলা/ কোন শিক্ষা নেয় নি/ কার কত টাকা/ স্বাধীনতা ঘোষনা, দিবস পতাকা সঙ্গীত বিতর্ক/ ৭ই মার্চের ভাষণ: ট্রিমেনডাস কন্ডিশনাল স্পিচ/ ধিক মুজিব ধিক/ ডায়রীরর পাতা/ শিক্ষা/ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা/ আমার শেখ মুজিবের ও শেখ হাসিনার ফাঁসি চাই। (১-২৬৬ পৃঃ পর্যন্ত)। এগুলো শুধু সূচি। ভিতরের মাল মশালা পড়লে আপনাদের গায়ে কোন লোম পড়ে থাকবে না, সব খাড়া হয়ে যাবে। এবার সাম্প্রতিক সময়ের আরো কিছু ঘটনা। তারপরও বাকী রইলো যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের নামে প্রহসন! সেটি নাড়ছিও না।

রৌমারির ঘটনা/ বিডিআর বিদ্রোহ/ ফেলানী হত্যা/ মাহমুদুর রহমানকে কারারুদ্ধকরণ/ সাগররুণি হত্যা/ ইলিয়াস গুম/ গার্মেন্টস জড়িত আমিনুল হত্যা/ শ্রীলংকা গার্ডিয়ানে প্রকাশিত ১০০ ক্রুসেডার সৃষ্টির সাইরেন ধ্বনি/ শফিক রেহমানকে কারারুদ্ধকরা/ দেশান্তরি সালাহউদ্দিন/ অবরুদ্ধ সালাহউদ্দিন/ অবারিত চাকরিতে হিন্দু প্রলয়াম/ চিহ্নিত উদ্দেশ্যপূর্ণ হত্যা গুম/ পেট্রোল বোমা নাটক/ কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন জাতি ধ্বংস নাটক/ শান্তিচুক্তির নামে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষফোঁড়ার জটিলতা সৃষ্টি/ প্রতিটি সিরিজ মৃত্যুর দায় সরকারের। সব সংখ্যালঘু মৃত্যুও তার সাজানো ভিন্ন নাটকের বড় অংশ। মিতুকে হত্যা করিয়ে এবার বাবুলকে ফাসানো হচ্ছে। তাকে চাপ দিয়ে জোর করে পদত্যাগে সই নেয়া হয়েছে এসবও খবরে আসছে। কারণ এখানে কেউ নীতি আদর্শের মানুষ বেঁচে থাকতে পারবে না, এরা চাকরী করলে সরকারের বিপদ বাড়বে বৈ কমবে না। সবাইকে ঐ নষ্ট দলের সদস্য হতে হবে। কারণ এ সব প্রকৃত মানুষ পুলিশ থাকলে সরকারের চলা ফেরাতে বড়ই বেগ পেতে হয়। তাদের ছলচাতুরী ধরা পড়ে যায়, তার চেয়ে বরং ভালো হয়  ভালোদেরে ছলে বলে বিদেয় করতে পারলে সরকার দম ছাড়তে পারবে, রঙ্গে রসে অপকর্ম, হত্যা গুম বানিজ্য করে যেতে পারবে। এসপি বাবুলের শ^াশুড়ী বাবুলকে ফেরেশতার মর্যাদা দিয়েছেন, এ ছেলেহীন মা তাকে ছেলের মর্যাদায় দেখেন। আল্লাহর কাছে এ সার্টিফিকেটের মূল্য অনেক। সারা দেশে ২০১৬ তে মাত্র একজন ফেরেশতা পুলিশ পাওয়া গেল, আল্লাহ এ রমজানের দিনে তার হেফাজত করুক। সরকার আর তার পেটুয়া পুলিশ বাহিনী শুধু টাকাই চিনে। কুরআনের নির্দেশ মোতাবেক নারীর ইজ্জত নিয়ে যারা খেলে তাদেরে ৮০ বেত্রাঘাত দেবার কথা। যা প্রকারান্তরে ঐ শক্তিমান পেটুয়া বাহিনীর ঘাড়েই বর্তায়। ভারতে মায়ের কোলে ফিরলো বাংলাদেশে পাচার হওয়া সনু। খুব সহজভাবে জটিলতা হয়নি, তার বাবা মা ধন্যবাদ জানান সংশ্লিস্ট সবাইকে। কিন্তু বিএনপির নেতা সালাহউদ্দিনের উপর যে নির্যাতন করলো সরকার ও ভারত, এর সূত্র ধরে তাকে কবজায় নিল এ নাটক চলছে, চলবে। ভারতের সনুর মত বাংলাদেশের সালাহউদ্দিনের ভাগ্যে ঐ শিকে ছিড়েনি। দ্বিধাবিভক্ত জাতি নিজের আপদ সামলাতে পারে কম। কৌশলে আপনাদেরে বিভক্ত করে রাখা হয়েছে। সাবধান হোন!

, জনতার কথা ১২ ১১ ১৩(বিরোধী দলের অনেক সিনিয়র নেতা গ্রেপ্তার হয়েছেন, সাধারণ মানুষ কি মনে করেন?)

দেশটির প্রতিটি মেধাকে মাটির সাথে মিশিয়ে দেয়া হচ্ছে। ৫৭ মেধাবী বিডিআর থেকে আজকের বাবুল আক্তারও একই নাটকের অংশমাত্র। তার মত একজন সৎ ও সাহসী অফিসারের পরিবারকেই বিচক্ষতার সাথে ময়দান থেকে বেছে নেয়া হলো। এমন অপকর্ম নেই যে সরকার বাদ রেখেছে। যাতে ঐ মাটিকে কস্মিনকালেও কোন সৎ পুলিশের জন্ম না হয়! পাঠক, মনে আছে নিশ্চয় রেশমা নাটক? অসত দাগেভরা সরকার যে মিথ্যাচারের উপর ভর করেই চলে এসব তার প্রমাণ পঞ্জিকা। রানা প্লাজা ধ্বসের পর বিদেশী প্রভাবশালী পত্রিকা লন্ডনের ডেইলি মিরর এর রিপোর্টে ধরা পড়ে এ সরকারের ধোঁকাবাজি। রেশমা প্রথম দিনই সবার সাথে বের হয়ে আসে, যা স্পষ্ট হয় তার এক সহকর্মীর কথাতেই।  সে সময় মিরর সরকারের এ নাটকের কথা পরিষ্কার করেই প্রকাশ করে। বাংলাদেশেও কিছু সাহসী পত্রিকায় অনেক কলাম ছাপা হয় এসব নষ্ট নাটকের উপর। সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশীদের ৪,৪২৮ কোটি টাকা। রিজার্ভ লুটের পর সরকার তার ডিজিটাল পুত্রসহ নিরব ভূমিকায় দিন গুজরান করছে। মাঝখান থেকে শফিক রেহমানরা কারাগারে কপট সময় পার করছেন। এমন এক সময় অস্ত্র দেখিয়ে পুলিশ মানুষ মারছে, অস্ত্র দেখিয়ে মসজিদ থেকে মুসল্লিদেরে বের করে দিচ্ছে। মন্দিরের নিরাপত্তা, পূজোর সাজ দিতে ব্যস্ত সরকার, ময়দানে মুসলিম নিধনেই সময় পার করে। অন্যদিকে চিপাগলিতে চুপিসারে সংখ্যালঘুও মারছে, যেন বিরোধীর উপর দোষ চাপানো যায়। সব লাশই সরকারের জমা অপকর্ম। আসামী একজনই, ঐ বাকশালের উত্তরসূরী। ৬ মাসে ৫ হিন্দুকে হত্যা, ৬৬ বাড়ীতে হামলা, আগুন। বাংলাদেশের আসামী জঙ্গি বাইরের নয়, সরকার জানে ভালোই। তার নিজ হাতে সাজানো পেটুয়া বাহিনী সব মদদে। বিশ^াস না হয়  মতিউর রহমান রেনটুর বইটির সূচির উপর চোখ বুলান। নিজের অস্তিত্ব রক্ষার্থে বইটি প্রতিটি বাংলাদেশীর পড়া অবশ্য কর্তব্য। জাগো বাঙ্গালী জাগো। ভারতের নির্দেশে হচ্ছে ফাঁসি খুন, ধড়পাকড়। ভারত তার স্বার্থের পুরোটাই গিলছে গোগ্রাসে, পানি ছাড়াই। আল্লাহ ভগবান ঈশ^রের তোয়াক্কায় নেই। ভারত বাংলাদেশ আজ হামসে বড়া কৌন হায়। দিশাহারা নয়, দিশা স্থির করে সমস্ত জাতি ঈমানী দায়িত্ব নিয়ে এক হোন। আল্লাহ অবশ্যই আপনাদের সহায়।

সারমর্ম: একটি আয়াত স্মরণ করিয়ে এখানেই শেষ করবো। “আর যারা নিজেদের আত্মাকে ফাঁকি দেয় তাদের পক্ষে বিকর্ত করো না। নিঃসন্দেহ আল্লাহ ভালবাসেন না তাকে যে বিশ্বাসঘাতক, পাপাচারী” (সুরা নিসার ১০৭ আয়াত)।

জনতার কথা ০৪ ১০ ১৩(আওয়ামী লীগ বলছে কেয়ামত হলেও দলীয় সরকারের অধীনেই নির্বাচন হবে, মতামত)

প্রায়ই লিংকগুলি মুছে দেয়া হচ্ছে। বাস্তবতা এখানেই নীচে।

নারায়ণগঞ্জে চাঞ্চল্যকর ৭ খুনে মন্ত্রী মায়ার জামাই ও নূর হোসেনের ফাঁসি!

 

নাজমা মোস্তফা,   ৩০ জুন ২০১৬ সাল।

 

 

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

Tag Cloud

%d bloggers like this: