Articles published in this site are copyright protected.

সেঞ্চুরী

নাজমা মোস্তফা

 

শতে পুরো অংক মিলালে সেঞ্চুরীর মঞ্জরী পল্লবিত হয়
ক্রিকেটে আফ্রিদী, শচিন, সুরিয়ারা সেঞ্চুরীর সঞ্চয় গড়ে।
আমাদের হতভাগারাও পিছু নয় মোটেও তারা
জাহাঙ্গির বিদ্যালয়ের সেরা সেরা বন্ধু সুজনেরা
সেঞ্চুরী গড়ে, মিষ্টিমুখ করে,ঢাক ঢোল পিটায়
স্বাধীনতাত্তোর রক্তøাত সবুজ মাঠের সোনার ফসল
ওরাই আমাদের নব প্রজন্মের তসলিমার সন্তানেরা ।
শত শত মেয়েরা সমানাধীকারের বোল নিয়ে,
সূর্যাস্তের আইনকে পদাঘাত পদানত করে,
স্বাধীনতার জয়টিকা একেছে নিজের ললাট শিয়রে,
ওরাই আমাদের লুন্ঠিত লাঞ্চিত তসলিমার মেয়েরা ।
উশৃংখলতা বাহন যাদের, স্বাধীনতা তাদের মুখের বুলি,
আত্মা তাদের পঙ্কিলতায় দলিত মথিত আকন্ঠ নিমজ্জিত,
বনের মুক্ত বিহঙ্গ তারা, দিশাহীন গৃহহারা পথের যাত্রি ওরা
ধর্ষিত জীবন অনেকেরই স্বেচ্ছায় বরণ,
এসব নাকি আজকালকার স্বাধীনতার ভাবমূর্তি,
বিকশিত, প্রস্ফুটিত ললনাদের যেন স্বেচ্ছায় মরণ।
জীবন্ত কফিনে ঢেকে যেন শরীরতত্ত্বের উদ্ভট খেলায় তারা মত্ত্ব,
সেঞ্চুরী গড়ছে প্রেতাত্বারা, আর পেতœীরা লুটাচ্ছে সর্বস্ব শক্তি সম্মান সামর্থ।
দিশাহীন রাত্রির যাত্রিরা আজো খুজে বেড়ায় স্বাধীনতা নামের উদ্ভট সংজ্ঞা,
যাকে নিজের অধীন করে রাখতে চায়।
আদর্শহীন স্বাধীনতা ক্রূর হাসি হাসে, মানবাত্মা ভুলুন্ঠিত হয়।
মদ, নেশা ও নারীর এই ত্রিমাত্রিক ছন্দে আটকা পড়ে,
ওরা সার্টিফিকেট কিনতে বিদ্যালয়ে ঢুকে।
শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত করা মেধাবী রাজনীতিক,
সারা দেশ মাতৃকার সন্তান সাজি দুর্লভ অঙ্গিকারে ,
ভূবন কাঁপানো বিষের বাশি নামের মাইকটা নিয়ে, হুঙ্কার ছাড়ে
ওরা নাকি আমাদের মেধাবী সূর্যøাত সন্তান।
শতরান গড়ে আমাদের আদর্শহীন বেটারা,
নকল নারীদের নরম শরীরে উদ্ভট আচরণে।
ওরাই ব্যাটকে ছুড়ে দিয়ে বেটীদের সেঞ্চুরী গড়ে,
মিষ্টির মহড়ায় ডুবন্ত প্রজন্মের জ্বলন্ত কঙ্কালসম,
স্বাধীনতার সন্তান মোদের কুৎসিত কদাকার কেন?
বায়ান্নর গর্বিত সন্তানের এই পরিমান অধঃপতন,
এ বুঝি স্বাধীনতার পাওনা?
ডজন ডজন শত শত বীরাঙ্গনারা আজ নব পাঞ্জাবীর হায়েনার শিকার,
ওরাই আজকের সূর্যসন্তান, আদর্শহীনতার ফসল ।
রাজাকার, মীরজাফর, উঁমিচাঁদ, রায়দুর্লভদের নবতর দুর্লভ সংস্করণ।

গোড়ার কথা: রচনাকাল ১৯৯৯ এর ২৩ ফেব্রুয়ারী। শ্রেষ্ঠ বিদ্যালাভ অর্জন করে আমাদের সোনার সন্তানেরা জাতির মুখে কালিমা লেপন করে যে কিম্ভুতকিমাকার চরিত্র চিত্রণ করেছেন , ধর্ষণের সেঞ্চুরী গড়েছেন তাতে তারা স্বাধীনতার এত বছরে কি শিখলেন জানি না, এমন সোনার সন্তানদের কাজ আত্মহননের নামান্তর, মানুষের বদলে পশুত্ব চর্চায় ওরা তৎপর।।

Tag Cloud

%d bloggers like this: